রোজায় ওরাল কেয়ার: জানা দরকার যে টিপ্সগুলো!

রোজায় ওরাল কেয়ার: জানা দরকার যে টিপ্সগুলো!

হেল্‌দি দাঁতের জন্য প্রোপার ওরাল কেয়ার এবং হাইজিন মেইনটেন করা খুবই ইম্পর্ট্যান্ট। রোজায় আমাদের স্কিন এবং চুলের যেমন একটু এক্সট্রা যত্নের প্রয়োজন, তেমনি ওরাল কেয়ারেও প্রয়োজন একটু বাড়তি সতর্কতা। রোজা রেখে দীর্ঘ সময় কোনো কিছু খাওয়া  বা পান না করার  ফলে মুখে ব্যাকটেরিয়া জমে দূর্গন্ধ তৈরি হতে পারে। ডেন্টিস্টরা  এসময় মাউথওয়াশ বা গরম পানি দিয়ে কুলি করতে সাজেস্ট করে, কারণ যতক্ষণ পর্যন্ত কেউ কোনো কিছু গিলে ফেলছে না ততক্ষণ পর্যন্ত রোজা ভাঙে না। কিন্তু অনেকেই রোজা রেখে মাউথওয়াশ, টুথপেস্ট এসব ইউজ করতে কমফোর্টেবল ফিল করে না। 

তাই আজকে আমি শেয়ার করবো রোজা রেখে এসব ইউজ না করেও, হেল্‌দি ওরাল হেল্‌থ মেইনটেন করার কিছু টিপ্‌স।

 

প্রতিদিন দুই বার দাঁত ব্রাশ

রোজায় যেহেতু আমাদের খাবার রুটিন এবং টাইমে বড় একটা পরিবর্তন আসে, তাই এই পরিবর্তনের সাথে মিলিয়ে দাঁত ব্রাশের টাইমও কিছুটা চেঞ্জ হয়ে যায়। ঘুমানোর আগে এবং সেহ্‌রির পর অবশ্যই দাঁত ব্রাশ করতে হবে। এমন একটা টুথপেস্ট সিলেক্ট করো যা লং টাইম তোমাকে রিফ্রেশিং ফিল দেয়। রোজায় চমৎকার ন্যাচারাল টুথপেস্ট হিসেবে আমি Ayush Freshness Gel Toothpaste-টি সাজেস্ট করবো। এটি এলাচের  অ্যারোমেটিক ফ্রেগরেন্স সমৃদ্ধ যা মুখের দুর্গন্ধ দূর করে। এছাড়াও এতে Arimedas Tailam নামে এক ধরনের আয়ুর্বেদিক অয়েল রয়েছে, যা দাঁতের ক্ষয় প্রতিরোধ করে এবং দাঁত শক্ত করে। দাঁত ও মাড়ি হেল্‌দি রাখার পাশাপাশি লং টাইম ফ্রেশ ফিল পেতে এই টুথপেস্টটি ইউজ করতে পারো।

তবে ইফতার ও সেহ্রিতে যদি মাছ বা দুধ জাতীয় খাবার থাকে তাহলে খাওয়ার ঠিক পরপরই দাঁত ব্রাশ করে নিবে। কারণ মাছ ও দুধ খাওয়ার পর অনেক সময় মুখের ভেতর দুর্গন্ধ তৈরি হতে পারে। 

oral-care-during-ramadan-the-tips-you-need-to-know-02

 

ডিহাইড্রেশন থেকে বাঁচতে পর্যাপ্ত পানি ও ফ্লুইড 

রোজা রেখে দীর্ঘ সময় ধরে পানি না খাওয়ার কারণে সহজেই ডিহাইড্রেশন হয়। আর এই ডিহাইড্রেশন থেকে মুখে দূর্গন্ধ হতে পারে। তাই দিনে এই পানির ঘাটতি পূরণ করতে ইফতার ও সেহ্‌রির মাঝে পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে। একটানা এতো পানি খেতে ভালো না লাগলে, পানির বদলে; লেমন জুস, ফ্রেশ ফ্রুট জুসও খেতে পারো!

oral-care-during-ramadan-the-tips-you-need-to-know-03

 

জিভ পরিষ্কার করতে স্ক্র্যাপার

দাঁত ব্রাশ করার পাশাপাশি নিয়মিত জিভ পরিষ্কারের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। কারণ, রেগুলার জিভ পরিষ্কার না করলে এতে ডেবরিস্‌, ব্যাকটেরিয়া ও ডেড্‌ সেল জমে এবং মুখের দুর্গন্ধ তৈরি হওয়ার পাশাপাশি ওরাল হেল্‌থ-এ নেগেটিভ প্রভাব ফেলে। তাই হেল্‌দি ওরাল হেল্‌থ মেইনটেন করতে, প্রতিদিন একবার স্ক্র্যাপার দিয়ে জিভ পরিষ্কার করতে হবে। 

oral-care-during-ramadan-the-tips-you-need-to-know-04

 

এড়িয়ে চলতে হবে যে খাবারগুলো

ইফতারে অতিরিক্ত চিনিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলতে ট্রাই করো। কারণ চিনি আমাদের ইমিউনিটি কমিয়ে দিয়ে বিভিন্ন হেল্‌থ প্রবলেম তৈরি করে। বিভিন্ন স্টিকি ফুড যেমন; চকোলেট,  চিজ খাবার পর অনেক সময় দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকে। তাই এসব খাওয়ার পর ভালোভাবে দাঁত পরিষ্কার করতে হবে। 

অনেকের ইফতার ও সেহ্‌রির পরপরই চা-কফি খাওয়ার অভ্যাস থাকে। কিন্তু চা-কফিতে থাকা ক্যাফেইন আমাদের শরীরে ডিহাইড্রেশন তৈরি করে। তাই যতটা সম্ভব রোজায় চা কফি এড়িয়ে চলা উচিত। রোজায় প্রতিদিন খেজুর, লেমন জুস, ফেশ ফ্রুটস ও ভেজিটেবল আর প্রচুর পানি খেতে ট্রাই করো। এটি কেবল তোমার ওরাল হেল্‌থ না ওভারওল হেল্‌থও ভালো রাখতে হেল্প করবে।     
 


রিলেটেড পোস্ট